COMPUTER NETWORKING BASICS IN BANGLA PART-9: WHAT IS DATA TRANSMISSION MODE??

Data Transmission

Data Transmission

Data Transmission Mode কি?

Transmission Mode দুটি ডিভাইসের মধ্যে ডেটা স্থানান্তর করার উপায়। Data Transmission Mode মাধ্যমে ডেটা এক ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে স্থানান্তরিত হয়। উৎস থেকে গন্তব্যে ডেটা ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে ডেটা প্রবাহের দিককে বলা হয় Data Transmission Mode। এটি Communication Mode হিসাবেও পরিচিত। ডেটা প্রবাহের দিকের উপর ভিত্তি করে ডেটা ট্রান্সমিশন মোডকে তিনভাগে ভাগ করা যায়। যথাঃ

১। Simplex Data Transmission Mode
২। Half-Duplex Data Transmission Mode
৩। Full-Duplex Data Transmission Mode

Simplex Data Transmission Mode কি?

Simplex Data Transmission Mode এ ডেটা কেবলমাত্র একদিকে Send করা হয়। এর অর্থ শুধুমাত্র একটি ডিভাইস সিগন্যাল Send করতে পারে। সিম্পলিক্স ট্রান্সমিশনের মোডে, যোগাযোগটি একমুখী। একটি সিম্পলেক্স ট্রান্সমিশন মোডে, Sender এবং Receiver-এর মধ্যে যোগাযোগ কেবল এক দিকেই ঘটে। তার মানে কেবল Sender ডেটা Send করতে পারবেন এবং Receiver কেবল ডেটা Receive করতে পারে। Sender বিপরীতে Receiver উত্তর দিতে পারে না। সিম্প্লেক্স একমুখী রাস্তার মতো যেখানে ট্রাফিক কেবল এক দিকে ভ্রমণ করে, বিপরীত দিক থেকে কোনও যানবাহন প্রবেশের অনুমতি দেয় না। পুরো চ্যানেল ক্ষমতা কেবল প্রেরক দ্বারা ব্যবহৃত হয়।

Simplex Data Transmission Mode

Simplex Data Transmission Mode

আপনি কিবোর্ড এবং মনিটরের উদাহরণ দিয়ে সিমপ্লেক্স ট্রান্সমিশন মোডটি আরও ভালভাবে বুঝতে পারবেন। কীবোর্ড কেবল মনিটরে ইনপুট প্রেরণ করতে পারে এবং মনিটরটি কেবল ইনপুট গ্রহণ করতে পারে এবং এটি স্ক্রিনে প্রদর্শন করতে পারে। মনিটর কোন তথ্য কীবোর্ডে Send করতে পারে না।

Simplex Data Transmission Mode

Simplex Data Transmission Mode

Advantage of Simplex mode

১।Transmission মাধ্যমের সম্পূর্ণ ক্ষমতা Sender দ্বারা ব্যবহৃত হয়।
২।এটি Transmission এর খুব সহজ উপায়।
৩।এটিতে কোন ট্রাফিক সমস্যা নেই।

Disadvantages of Simplex mode

১।Transmission একটি মাত্র দিকে করা যায় ।
২।দ্বি নির্দেশমূলক যোগাযোগ সম্ভব হয়।
৩।দুটি ডিভাইস সিমপ্লেক্স মোডে যোগাযোগ করতে পারে না।

Half-Duplex

Half-Duplex ট্রান্সমিশন মোডে, Sender এবং Receiver এর মধ্যে যোগাযোগ উভয় দিকেই ঘটে তবে, একবারে একটি। Sender এবং Receiver উভয়ই তথ্য সঞ্চারিত ও গ্রহণ করতে পারে তবে, একবারে কেবলমাত্র একজনকে Send করার অনুমতি দেওয়া হয়।

Half-Duplex Data Transmission Mode

Half-Duplex Data Transmission Mode

Half duplex হচ্ছে একমুখী রাস্তা, যেখানে ট্র্যাফিকের বিপরীত দিকে ভ্রমণকারী কোনও যানবাহনটি রাস্তা খালি না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। পুরো চ্যানেল ক্ষমতাটি ট্রান্সমিটার দ্বারা ব্যবহৃত হয়, সেই নির্দিষ্ট সময়ে Transmit করে।

Half Duplex Data Transmission Mode

Half Duplex Data Transmission Mode

হাফ ডুপ্লেক্স ওয়াকি-টকিজের উদাহরণ দিয়ে বোঝা যায়। ওয়াকি-টকিজের উভয় প্রান্তে বক্তা যেমন কথা বলতে পারেন তবে তাদের একে একে কথা বলতে হবে। দুজনেই এক সাথে কথা বলতে পারে না। হাফ-ডুপ্লেক্স মোডের আর একটি উদাহরণ রেডিও যোগাযোগ ডিভাইস। যুদ্ধক্ষেত্রে সৈন্যরা যোগাযোগের জন্য এই ডিভাইসটি ব্যবহার করে, এই সময়ে যখন একজন লোক তার বার্তা প্রেরণ করে, তখন অন্য একজন লোক কেবল এটি গ্রহণ করে। যখন প্রথম ব্যক্তি বলবেন Over তখন অন্য ব্যক্তি মোবাইল ফোনের মতো একটি বার্তা পাঠাতে পারবে ।

Advantages of Half-Duplex Mode

১।গতি Half-Duplex এর একটি বড় সুবিধা।
২।ডিভাইস ডেটা গ্রহণ এবং প্রেরণ করতে পারে তবে একই সময়ে নয়।
৩।সমস্যার সমাধান খুব সহজ।
৪।উভয় পক্ষের মধ্যে ডেটা প্রেরণ করা যায়।
৫।এটি দ্বিপাক্ষিক (Bidirectional) যোগাযোগ সরবরাহ করে।

Disadvantages of Half Duplex mode

১।Half-Duplex মোডে ডেটা একই সময়ে উভয় পক্ষেই প্রেরণ করা যায় না।
২।যখন কোনও ডিভাইস ডেটা প্রেরণ করে, অন্যদিকে ডিভাইস কেবলমাত্র ডেটা গ্রহণ করে।
৩।ডেটা Transmission ধীর।
৪।ডেটা Transmission বিলম্ব(Delay)।

Full-Duplex

Full-Duplex Transmission Mode এ, Sender এবং Receiver এর মধ্যে যোগাযোগ একই সাথে ঘটতে পারে। Sender এবং Receiver উভয়ই একই সাথে একই সাথে Send এবং Receive করতে পারেন। Full-Duplex Transmission মোডটি দ্বিপথের রাস্তার মতো যেখানে ট্র্যাফিক একই সাথে উভয় দিকে প্রবাহিত হতে পারে।

Full-Duplex Data Transmission Mode

Full-Duplex Data Transmission Mode

ফুল-ডুপ্লেক্স মোডের বড় উদাহরণটি একটি টেলিফোন, টেলিফোনে কনভার্সন উভয় লোকই কথা বলতে ও শুনতে সক্ষম হয়।

Full Duplex Data transmission example

Full Duplex Data transmission example

Advantages of Full-duplex Mode

১।হাফ-ডুপ্লেক্স এবং সিমপ্লেক্স মোডের চেয়ে ফুল-ডুপ্লেক্স মোডের পারফরম্যান্স অনেক ভাল।
২।ফুল-ডুপ্লেক্স মোডের গতি সিম্প্লেক্স এবং অর্ধ-দ্বৈত মোডের চেয়ে বেশি।
৩।উভয় পক্ষের ডেটা প্রেরণ এবং গ্রহণ করা যেতে পারে, যা নেটওয়ার্কের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
৪।যোগাযোগে কোনও বিলম্ব নেই, কারণ উভয় ডিভাইসই একই সাথে ডেটা প্রেরণ এবং গ্রহণ করে।

Disadvantages of Full-duplex Mode

১।একই লাইন একই সময়ে ডেটা প্রেরণ ও গ্রহণের জন্য একই লাইন হিসাবে ব্যবহার করা হয়, এখানে তেমন কোন যথাযথ ব্যান্ডউইথ ব্যবহার নেই।

Main Differences between the Three Transmission Modes

  • সিমপ্লেক্স মোডে ডেটা বা সিগন্যাল এক দিকে প্রেরণ করা হয়। হাফ-ডুপ্লেক্স মোডে, সংকেত উভয় দিক থেকে সঞ্চারিত হতে পারে, তবে একবারে একটি। ফুল-ডুপ্লেক্স মোডে থাকাকালীন একই সময়ে উভয় দিকেই সিগন্যাল প্রেরণ করা হয়।
  • সিমপ্লেক্স মোডে, কেবল একটি ডিভাইস সিগন্যাল প্রেরণ করতে পারে। হাফ-ডুপ্লেক্স মোডে, উভয় ডিভাইসই সিগন্যাল প্রেরণ করতে সক্ষম, তবে একই সময়ে নয়। ফুল-ডুপ্লেক্স মোডে, উভয় ডিভাইস একই সাথে সংকেত প্রেরণ করতে পারে।
  • সিমপ্লেক্স এবং হাফ-ডুপ্লেক্সের চেয়ে ফুল-ডুপ্লেক্স পারফরম্যান্স অনেক ভাল।
  • সিমপ্লেক্স: সিমপ্লেক্স মোডের উদাহরণ কীবোর্ডটি মনিটরে ডেটা প্রেরণ করে। মনিটর কীবোর্ডের জবাব দিতে পারে না।
  • হাফ-ডুপ্লেক্স: ওয়াকি-টকি হ’ল হাফ-ডুপ্লেক্স মোডের একটি বড় উদাহরণ, উভয় যোগাযোগ করতে পারে, তবে তাদের পালা বদল করে নিতে হয়।

যেকোন ডেটা কমিউনিকেশন সিস্টেমে একই সময়ে একটি প্রেরক ডেটা প্রেরণ করলে তা এক বা একাধিক প্রাপক সহজেই গ্রহণ করতে পারে। কিন্তু একাধিক প্রেরক ডেটা প্রেরণ করলে তা এক বা একাধিক প্রাপক গ্রহণ করতে ডেটা কলিশন বা সংঘর্ষ হয়। তাই প্রাপকের সংখ্যা ও ডেটা গ্রহনের অধিকারের উপর ভিত্তি করে ডেটা ট্রান্সমিশন মোডকে আবার তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে।

১। ইউনিকাষ্ট (Unicast)
২। মাল্টিকাস্ট (Multicast)
৩। ব্রডকাষ্ট (Broadcast)

Unicast Data Transmission Mode

ইউনিকাষ্ট হলো পয়েন্ট-টু-পয়েন্ট ট্রান্সমিশন সিস্টেম। অর্থাৎ কোন নেটওয়ার্কের একটি প্রেরক থেকে ডেটা প্রেরণ করলে ঐ নেটওয়ার্কের শুধুমাত্র একটি প্রাপক সেই ডেটা গ্রহন করবে, ডেটা ট্রান্সমিশনের এরুপ মোডকে বলা হয় ইউনিকাষ্ট। এই ট্রান্সমিশনে ডেটার আদান-প্রদান সিমপ্লেক্স, হাফ-ডুপ্লেক্স ও ফুল-ডুপ্লেক্সে মোডে সম্পন্ন হতে পারে। নিচের নেটওয়ার্কে শুধু একজন ডেটা পাঠাচ্ছে এবং একজন ডেটা গ্রহন করছে। যেমন-টেলিফোন সিস্টেম।

Unicast Data Transmission Mode

Unicast Data Transmission Mode

Multicast Data Transmission Mode

মাল্টিকাষ্ট হলো পয়েন্ট-টু-সিলেক্টেড-মাল্টিপয়েন্ট ট্রান্সমিশন সিস্টেম। অর্থাৎ কোন নেটওয়ার্কের একটি প্রেরক থেকে ডেটা প্রেরণ করলে ঐ নেটওয়ার্কের শুধুমাত্র সিলেক্টেড প্রাপকসমূহ সেই ডেটা গ্রহণ করবে, ডেটা ট্রান্সমিশনের এরুপ মোডকে বলা হয় মাল্টিকাষ্ট। এই ট্রান্সমিশন সিস্টেমে নেটওয়ার্কের সকল প্রাপক ডেটা পাবে না। নিচের নেটওয়ার্কে শুধু একজন ডেটা পাঠাচ্ছে এবং অনেক জন ডেটা গ্রহন করছে কিন্তু সবাই নয়। যেমন: মোবাইল কনফারেন্স, অডিও , ভিডিও কনফারেন্স ইত্যাদি।

Multicast Data Transmission Mode

Multicast Data Transmission Mode

fBroadcast Data Transmission Mode

ব্রডকাষ্ট হলো পয়েন্ট-টু-মাল্টিপয়েন্ট ট্রান্সমিশন সিস্টেম। অর্থাৎ কোন নেটওয়ার্কের একটি প্রেরক থেকে ডেটা প্রেরণ করলে ঐ নেটওয়ার্কের সকল প্রাপকই সেই ডেটা গ্রহণ করবে, ডেটা ট্রান্সমিশনের এরুপ মোডকে বলা হয় ব্রডকাষ্ট। নিচের নেটওয়ার্কে শুধু একজন ডেটা পাঠাচ্ছে এবং সবাই ডেটা গ্রহন করছে। যেমন- রেডিও, টেলিভিশন কমিউনিকেশন সিস্টেম।

Broadcast Data Transmission Mode

Broadcast Data Transmission Mode

ডেটা কমিউনিকেশনে মাল্টিপয়েন্ট-টু-পয়েন্ট বা মাল্টিপয়েন্ট-টু-মাল্টিপয়েন্ট ট্রান্সমিশন করা হয় না। কারণ এতে ডেটার কলিশন বা সংঘর্ষ হয়।

Ahad Islam

Leave a Reply